1. admin@kalomkantho.net : admin :
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আটঘরিয়ায় ইউপি নির্বাচনে নৌকাপ্রত্যাশী প্রবীণ রাজনীতিবিদ মহসিন মোল্লা ঝিকরগাছা উপজেলায় নৌকা পেল যারা শেখ রাসেলের জন্মদিনে ঢাকা মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদের নানা কর্মসূচি ঝিকরগাছায় ৭৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শুরু ঝিকরগাছা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ঝিকরগাছার গরিবের ডাক্তার হাবিবুরের মৃত্যু, সাবেক এমপি মনিরের শোক ঝিকরগাছা থানায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত ঝিকরগাছায় আ. লীগ নেতার মৃত্যু, স্বেচ্ছাসেবক লীগ আহ্বায়ক কালামের শোক যশোরে চাঁদাবাজির মামলায় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা গ্রেফতার যুবলীগ থেকে ব্যারিস্টার সুমনকে অব্যাহতি

কাদা মাটিতে স্বপ্ন বুনছে কৃষক

  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৬৭ ভিউ টাইম

নিজস্ব প্রতিবেদক 

ঝিকরগাছার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ইতোমধ্যে কাদা মাটিতে বুনতে শুরু করেছে কৃষকের স্বপ্ন। মাঘের শীতকে উপেক্ষা করে ইরি-বোরো ধানের চারা রোপণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কৃষক-কৃষাণীরা। সম্প্রতি সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সার ও বীজ চারা নিয়ে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন তারা। বিরামহীন গতিতে চলছে ইরি-বোর রোপণের কাজ।

চলতি মৌসুমে ইরি-বোরো ধান রোপণে বীজ-চারা সংগ্রহে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। বিশেষ করে বর্গাচাষিদের মধ্যে বীজ-চারার সংকট থাকায় বিভিন্ন হাট-বাজারে গিয়ে গুণগত মান যাচাই-বাছাই করে চারা ক্রয় করতে দেখা গেছে তাদের।

অন্তত এক যুগ পরে রোপা আমন ধান চাষে এবার লাভেরমুখ দেখছে কৃষক। আবহাওয়া অনুকূল থাকায় এ মৌসুমে আমন ধানে বাম্পার ফলন হয়েছে। দামও কৃষক যা পেয়েছেন গত এক যুগে এমন বাজার দর পাইনি। সব মিলিয়ে আমন ধান চাষে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। এ কারণে কৃষকরা এবার বোরোইরি ধান চাষে বেশি ঝুঁকে পড়েছেন।

সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, দিগন্ত মাঠে হেমন্তের আমণ ধানের মম গন্ধে নবান্নের উৎসবের ইতি না হতেই কৃষকরা বোরো ইরি ধান চাষে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। গতকাল উপজেলার নায়ড়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়ার মাঠে আকরম আলী নামে এক কৃষকে বোরোইরি ধান রোপন করতে দেখা গেছে। তিনি জানান, বহুদিন পর এবার আমন ধানে ভালো দাম পাওয়া গেছে। তাই এবার বেশি করে বোরো ইরি ধান চাষ করছি। তিনি ইতোমধ্যে ব্রি-২৮, বাসুমতি, ও শুভলতা জাতের ৩ বিঘা জমিতে বোরো ইরি ধান রোপন শেষ করেছেন।

একই গ্রামের কৃষক জিনারুল জানান, ৭ বিঘা জমিতে মিনিকেট ও কাজল লতা জাতের আমন ধান চাষ করে ফলন পেয়েছেন ১৮ মণ করে। ধান বিক্রি করেছেন এক হাজার ২০ টাকা মণ। নিনি জানান, অনেক বছর পরে কৃষক ধানের ন্যায্য দাম পেয়েছেন। তিনিও ৮ বিঘা জমিতে বোরো ইরি ধান চাষের জন্য বীজতলা (পাতা) দিয়েছেন।

উপজেলার নায়ড়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়া মোড়ের ধান ব্যবসায়ী হাফিজুর জানান, বর্তমান মোটা ধান বেচাকেনা হচ্ছে ৯২০ থেকে ৯৮০ টাকা, চিকন ১০০০ থেকে ১০৮০ টাকা মণ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আইয়ুব হোসেন জানান, আমনে বাম্পার ফলন আর কাঙ্খিত দাম পাওয়ায় কৃষকরা এবার ধান চাষে লাভবান হয়েছেন। ফলে চলতি মৌসুমে বোরো ইরি ধান চাষে কৃষকরা ঝুঁকে পড়েছেন।

সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
' অনুমতি ব্যতিত কপিরাইট দণ্ডনীয় অপরাধ'
Theme Customized By kalomkantho.net