1. admin@kalomkantho.net : admin :
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আটঘরিয়ায় ইউপি নির্বাচনে নৌকাপ্রত্যাশী প্রবীণ রাজনীতিবিদ মহসিন মোল্লা ঝিকরগাছা উপজেলায় নৌকা পেল যারা শেখ রাসেলের জন্মদিনে ঢাকা মহানগর বঙ্গবন্ধু পরিষদের নানা কর্মসূচি ঝিকরগাছায় ৭৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শুরু ঝিকরগাছা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম রেজা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ঝিকরগাছার গরিবের ডাক্তার হাবিবুরের মৃত্যু, সাবেক এমপি মনিরের শোক ঝিকরগাছা থানায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত ঝিকরগাছায় আ. লীগ নেতার মৃত্যু, স্বেচ্ছাসেবক লীগ আহ্বায়ক কালামের শোক যশোরে চাঁদাবাজির মামলায় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা গ্রেফতার যুবলীগ থেকে ব্যারিস্টার সুমনকে অব্যাহতি

আ.খ.ম জাহাঙ্গীর হোসাইনের মৃত্যুতে সাবেক এমপি মনিরের শোক

  • আপডেট টাইম বৃহস্পতিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৬৯ ভিউ টাইম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সাবেক প্রতিমন্ত্রী, প্রাক্তন সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা আ. খ. ম. জাহাঙ্গীর হোসাইন মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি….রাজিউন)। করোনা আক্রান্ত অবস্থায় প্রায় ২২ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) তিনি মারা যান। তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন চৌগাছা -ঝিকরগাছা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য এ্যড. মনিরুল ইসলাম মনির।

জাহাঙ্গীর হোসাইন বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর।

সাবেক সংসদ সদস্য এ্যড. মনিরুল ইসলাম মনির এক শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

জাহাঙ্গীর হোসাইন স্ত্রী সেলিনা হোসাইন, ছেলে আসম জাওয়াদ সুজন, মেয়ে ড. শারমীন জাহান শাম্মি ও নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

তিনি পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসন থেকে চারবার আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। ছিলেন প্রতিমন্ত্রী। এছাড়া, আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতা ছিলেন তিনি।

তিনি গত ২ ডিসেম্বর প্রথম কোভিড-১৯ পজিটিভ হন। অবস্থার অবনতি হলে গত ৪ ডিসেম্বর তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের চরচন্দ্রআইল গ্রামে জন্ম নেওয়া আ.খ.ম. জাহাঙ্গীর হোসাইনের রয়েছে দীর্ঘ বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। পাকিস্তান আমলে গলাচিপা মডেল সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনার সময় তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সঙ্গে যুক্ত হন। ৭৫ সালে জাতির পিতার নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে তিনি ছিলেন প্রথম সারির লড়াকু সৈনিক।

মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন যখন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন, তখন আ.খ.ম. জাহাঙ্গীর হোসাইন সফলতার সঙ্গে ওই কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। সে সুবাদে তিনি দেশব্যাপী ছাত্রনেতা হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেন।

১৯৮১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরে এলে আ.খ.ম. জাহাঙ্গীর হোসাইন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দফতর সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৯১ সালে তিনি প্রথমবারের মতো পটুয়াখালী-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগের এমপি নির্বাচিত হন। ১৯৯৬, ২০০১ ও ২০১৪ সালে তিনি আরও তিনবার একই আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন।

১৯৯৬ পরবর্তী আওয়ামী লীগ সরকারে তিনি বস্ত্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি সংসদীয় বিভিন্ন কমিটির সদস্যও ছিলেন। সর্বশেষ তিনি আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। এছাড়া, বরিশাল বিভাগীয় আওয়ামী লীগের অন্যতম সমন্বয়কারী ছিলেন।

এমপি ও মন্ত্রী থাকাকালে তিনি এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ছিলেন নিবেদিত। তার উন্নয়নের প্রতীক হিসেবে এলাকায় অসংখ্য প্রতিষ্ঠান মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আছে। তার মৃত্যুতে গলাচিপা ও দশমিনা উপজেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনগুলো বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

কলমকণ্ঠ/ইছানুর

সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
' অনুমতি ব্যতিত কপিরাইট দণ্ডনীয় অপরাধ'
Theme Customized By kalomkantho.net